ইউটিউবটিপস এন্ড ট্রিকস

দারুন ১৫ টি ইউটিউব চ্যানেল আইডিয়া

আপনি ইউটিউবে ক্যরিয়ার গড়তে চাইছেন তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসে উপস্থিত হয়েছেন আপনার জন্য দারুন ১৫ টি ইউটিবের চ্যানেলের আইডিয়া।

হতে পারে আপনার একটি টপিকের প্রয়োজন যেটার উপরে আপনি কাজ করবেন, ও চ্যানেল আইডিয়া পেয়েছেন, তাহলে শুনুন সেটা আর কাজ করবে না, আর যদিও করে তাহলে প্রচুর সময় নেবে র‍্যাঙ্ক হতে, তাহলে কি করবেন আসুন নিচের কিছু নতুন ক্রিয়েটিভ চ্যানেল আইডিয়া বা ইউটিউব কন্টেন্ট আইডিয়া আছে যেগুলি উপর ইউটিউব ভিডিও তৈরি করে দেখতে পারেন।

এই চ্যানেল আইডিয়া গুলি খুঁজতে আমার ১ সপ্তাহ সময় লেগেছে এবং প্রত্যেকটি চ্যানেলের আইডিয়া সলিড ও ইউনিক এবং খুবই তাড়াতাড়ি ভিউ পাবার সম্ভবনা আছে।

সবার আগে চেষ্টা করুন একটি নজর কাড়া ইউটিউব চ্যানেল বানাতে তার পর ইনকাম আপনি দেখবেন যারা সফল ইউটিউবার তাদের ভিডিও খুব বেশি ভাইরাল হয়ে যায় বা খুব লাইক, সাবস্ক্রাইবার আসে আলটিমেট প্রচুর ইনকামও করে যদি আপনি শুরুতেই এই রকমের কিছু আশা করেন তাহলে ওটা সম্ভব নয়,তাদের প্রচুর সময় ব্যায় করে তবেই ওই রকমের একটি চ্যানেল দাঁড় করাতে পরেছে।

বড়ো মাপের ইউটিউব কনটেন্ট ক্রিয়েটরা একটি জিনিস তাদের সফল বানায় কারণ তাদের বরংবর উচ্চ মানের ভিডিও তৈরি করে থাকেন শুরু থেকে চ্যানেল গ্রোও ও সফল হওয়া পর্যন্ত।

আপনি যদি ইউটিউবে কাজ করতে ইচ্ছুক তাহলে একটি সঠিক আর্ট বা ডিজান সেট করুন আপনার ভিডিওর পেছনে, যেনো সেটা মিল থাকে ভিডিও অনুযায়ী।

নিচের চ্যানেল আইডিয়া গুলি বিভিন্ন ধরণের বিসনেস, ফ্যাশন, বিউটি, গেমিং, স্পোর্টস,ফিটনেস, মধ্যে যেকোনো একটি আইডিয়া নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন।

চলুন শুরু করা যাক!

১. কমেডি ভিডিও

মানুষকে হাসানো সত্যি একটি কঠিন কাজ,কিন্তু খুব কঠিন না যতোটা আপনি মনে করছেন কমেডি এই রকমের এক ধরণের নিশ খুব কম লোক তাদের ক্যরিয়ার এই কমেডি নিশ দিয়ে শুরু করতে চায় কারণ লজ্জা ও ভয়ের কারণে, কিন্তু উল্টো দিক থেকে দেখলে কমেডি নিশ নিয়ে আপনি এক বছর কাজ করার পর বুজতে পারবেন কেমন খুব তারতারি আপনি সাবস্ক্রাইবার গেইন করছেন এবং আপনার আয়ও বাড়ছে।

কমেডি দেখতে মানুষ এমনি খুব পছন্দ কিন্তু কমেডির মধ্যে যখন মিস্টেক গুলি করেন এবং অন স্পট আসে সেগুলি আরও ভাইরাল হয়।

২. আনবক্সিং (Unboxing)

আপনি নিশ্চিত ভাবছেন কোনো আমি এই নিশ টাকে এখনো আনলাম তাহলে শুনলে অবাক হবেন, ২০২১ সালের প্রথম সেরা ১০ টি নিশের মধ্যে এটার নাম আগেই থাকবে, আনবক্সিং নিশ নিয়ে কাজ করলে ইনকামের উপায় শুধু গুগল অ্যাডসেন্স থেকেই আসবে না প্রচুর কোম্পানি স্পনসরও করতে পারে।

আপনি যদি ভাবেন কি ধরণের আনবক্সিং শুরু করবেন তাহলে বলি আপনার যেটা ভালো লাগে, এমনটি নয় শুধু টেক সীমাবদ্ধ চ্যানেল, আনবক্সিং চ্যানেলের একটি জিনিস আমার ভালো লাগে যখন আমি কিছু ভিডিও দেখি শুধু আমার লক্ষ থাকে প্রোডাক্টের উপর।

যেটার বিষয়ে আপনার একটি সাধারণ ইন্টারেস্ট আছে সেটির আনবক্সিং শুরু করুন তবেই লং রান পর্যন্ত ডেডিকেট ভাবে কাজ করতে পারবেন।

৩. টিউটোরিয়াল (Tutorials)

কোনো বানাবেন টিউটোরিয়াল চ্যানেল শুনুন ২০২১ মধ্যে মানুষ ৫৫% বিষয় বস্তু যেকোনো শেখার জিনিস ইন্টারনেট থেকে নেবে, তাহলে কোনো আপনি একটি টিউটোরিয়াল চ্যানেল তৈরি করার কথা ভাবছেন না।

কোনো টিউটোরিয়াল বানানোর সময় খেয়াল রাখবেন যেনো এটার মাধম্যে মানুষ কিছু শিখতে পারে, এবং কিছু অর্জন করতে পারে।

যেকোনো কিছুর ওপরে আপনি টিউটোরিয়াল বানাতো পারেন মেকাপ হোক, বা গেমিং, রান্নাবান্না করা বা ভাষা শেখা, টেকের উপরে আপনি চ্যানেল বানাতে পারেন।

৪. চ্যালেঞ্জ (Challenges)

আপনি এটা দেখবেন কিছু ইংলিশ চ্যানেল প্রচুর ধরণের চ্যালেঞ্জ ভিডিও বানাচ্ছে যেমন ধরুন স্কেটিং করা, সাঁতার দেয়া, পাবলিক ফ্লিপ জাম্প ইত্যাদি যেগুলি মানুষের ভালো ধরণের নজর কাড়ে।

ভিডিও গুলি সবসময়ই পাবলিক প্লেস বানানোর চেষ্টা করুন ভিডিও চ্যলেঞ্জ গুলি টুইস্টফুল রাখুন।

কিছু ক্ষেতে চ্যালেঞ্জ ভিডিও গুলি প্রচুর ভুল হয় এগুলিতে মানুষের রিঅ্যাকশন থাকে খুব বেশি করে তাই এগুলি আপলোড করার চেষ্টা করবেন।

৫. প্রাঙ্ক (Prank)

প্রাঙ্ক ভিডিও নিশটি সত্যি একটু চ্যালেঞ্জিং নিশের মধ্যে আসে, এটা আপনারই জানানে কিভাবে স্ক্রিপ্ট ও ভিডিও নিতে হয়, বিগত শেষ ১ বছর গোটা প্রথিবীর মানুষ প্রাঙ্ক ভিডিও খুবই উপভোগ করেন তাই একটি প্রাঙ্ক চ্যানেল বানাতেন পারেন।

এই কারণেই প্রাঙ্ক খুব চ্যালেঞ্জিং ওঠা মানুষের ওপর অ্যাপ্লাই করতে হয়, যেটা সম্ভবনা থাকে অনেক কিছু ঘটার।

কিন্তু আপনি একটি কাজ করতে পারেন আপনি আপনার বন্ধু বা ফ্যামিলির উপর অ্যাপ্লাই করতে পারেন শুরুতে, যদি তারা জানতে পারে তাহলে তারা আপনাকে ক্ষমা করে দিবে।

৬. ভ্লগ (Vlog)

কেমন ভাবে মানুষ জীবন যাপন করছেন এটা জানতেই বেশিরভাগ পৃথিবীর মানুষজন ইচ্ছুক অন্য প্রান্তের মানুষের প্রতি, তাই এই ভ্লগ গুলি মানুষ খুব দেখে।

ভ্লগ আইডিয়া আনা খুব কঠিন কিন্তু ভ্লগের পুরুস্কার অনেক কিছু আছে আপনি হতে পারে একটু লজ্জিত হতে পারেন, যদি আপনি ভ্লগ মান সমতুল্য ঠিকঠাক ভিডিও দিয়ে আপনার অডিয়েন্সকে সন্তুষ্ট করতে পারেন এটা থেকে ইনকাম প্রচুর।

তাছাড়াও ফেমাস ইউটিউবার রা একটি করে ভ্লগ মেইনটেইন করে থাকেন দৈনিক।

৭. ইন্টারভিউ (Interviews)

আপনিও একটি ইন্টারভিউ চ্যানেল বানাতো পারেন, যেটার প্রতি মানুষের আকর্ষণ যেমন অন্য কোনো ছোটো মাপের ইউটিউবারের ইন্টারভিউ নিতে পারেন বা যারা ব্লগিং করছেন তাদের ইন্টারভিউ নিতে পারেন,কোনো ছোটো মাপের ক্রিকেটারদের নিয়ে ইন্টারভিউ করতে পারেন।

প্রধানত যাদের মানুষজন একটু চেনে, এতো আপনার অডিয়েন্স বুস্ট হবে খুব তাড়াতাড়ি,কারণ তাদের কিছু কিছু অডিয়েন্স আপনার অডিয়েন্সএ পরিণত হবে।

আপনার পারিপার্শিক অবস্থার ওপর নজর রাখুন যখনই কিছু খবর পাবেন চেষ্টা করুন তাদের ইন্টারভিউ করার।

আপনার ইন্টারভিউটি হওয়া চাই স্টোরি বলার মতে,যেখানে আপনার অডিয়েন্স ভিড় জমাবে ইন্টারভিউ শোনার জন্য তাহলে অনেক ইউটিউব ভিউ বা সাবস্ক্রাইবার পাবেন।

৮. পোষ্য (Pet)

বিগতো ৩ বছর থেকে ইউটিউবে নাটকীয় ভাবে বাড়ির পোষ্যর ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে, এই নিশটি খুবি প্রফিটবেল হবার কারণ, আপনি সমগ্র পৃথিবী থেকে অডিয়েন্স পেতে পারেন।

এছাড়াও অনেকই তাদের পোষ্যকে বিভিন্ন ভাবে সাজায় মজাদার এক্টিভিটি করানোর জন্য ও ভাইরাল ভিডিও বানানোর জন্য,  আপনিও করতে পারেন।

৯. অচেনা ট্যালেন্ট (Trapped Talent)

অনেক মানুষই আছেন যাদের কিছু স্পেশাল ট্যালেন্ট আছে হতে পারে কথা বলার স্টাইল, কিছু অনন্য কাজ যেটি আপনি ইউটিউবে শেয়ার করতে পারেন।

তবে কিছু স্পেশাল ট্যালেন্ট যেগুলি কম দেখাযায় যদি এই সব ইউটিউবে আনতে পারেন এই গুলি মানুষের খুব নজর কাড়েন।

১০. এক্সপেরিমেন্ট  (Experiment)

ইউটিউবে খুব কম মানুষ এক্সপেরিমেন্ট ভিডিও তৈরি করেন,যেগুলি কেমিক্যাল বা ইলেকট্রিক জিনিস ব্যবহার করে অ্যাকশন করানো হয় এবং ফলাফলও আসে।

কিন্তু এক্সপেরিমেন্ট চ্যানেল খুব ভয়ংকর একটি নিশ যেখানে সব সময় কিছু ভয়ংকর ঘটতেও পারে তাই এই সব চ্যানেল কাজ করা খুব কঠিন।

১১. ত্বকের যত্নআত্রি (Skin care)

সবাই সবসময় দিন থেকে রাত ত্বকের যত্ন নিতে পারেন না, বা কেউ পারেও কিন্তু তদের ইউটিউব ব্যবহার করেন না তাই আপনি তাদের সাহায্য করতে পারেন স্কিন কেয়ার টিপসের মাধ্যমে।

এখানো খুব সহজেই কিছু প্রোডাক্টও প্রমোট করতে পারবেন যেগুলি আপনি ব্যবহার করছেন আপনার মেকআপ বা ত্বকের পরিচর্যার জন্য।

এগুলি আপনাকে ভিডিওতে ব্যবহার করে তার গুনা গুন গুলি জানাতে হবে, সেইসঙ্গে এগুলি কিভাবে ব্যবহার করতে হবে ত্বকের উপর এগুলিও জানান।

১২. গেম স্ট্রিমিং (Game Streaming)

গেম খেলতে খুব ভালো বাসেন তাহলে এটাকেই ক্যরিয়ার হিসাবে দেকতে পারেন, কিভাবে আজ কম বেশি সবাই গেম খেলে অনলাইন বা অফলাইন আপনিও খেলুন কিন্তু এগুলি স্ট্রিম করতে পারেন সরাসরি যাতে কিভাবে আরো ভালো ভাবে গেমটি খেলা যায় এটাই দেখাবেন আপনার দর্শকদের।

আপনি নিজেই গেমটিম বানিয়ে খেলতে পারেন, কিন্তু কাদের সঙ্গে টীম বানাবেন আপনার দর্শকদের নিয়ে, আপনার কমেন্ট্রি এমন ভাবে দিন যাতে দর্শকদের মন কেড়ে যায়।

১৩. গেমিং গ্লিছ

অনেকই অনেক সময়ও বিভিন্ন ধরণের গেম আমরা খেলি,কিন্ত কখনো গেমিং কিছু সমস্যা হলে আমার আর খেলতে পারিনা তাই সেই সমস্যা গুলি কিভাবে দূর করবেন এগুলি আপনি আপনার দর্শকদের জানতে পারেন ইউটিউবের মাধম্যে।

যদি আপনার টিপস খুব অসাধারণ হয় তাহলে আপনি এই কাজটির জন্য পয়সা চার্জ করতে পারেন।

১৪. দক্ষতা বা স্কিল

কিছু স্কিলস আছে যেগুলি শিখলেও পাওয়া অসম্ভব যেমন বিটবিক্স বা জলের নিচে অনেক ক্ষন পর্যন্ত থাকা, আপনি এই অসাধারণ আরো কিছু স্কিল আছে আপনি বুজতে পারছেন আর কারো মাধ্যমে সম্ভব না আপনিও দেখাতে পারেন কিভাবে করছেন এগুলি।

কিছু কিছু শুট আপনি দক্ষ হলেও নিতে প্রচুর সময় নিয়ে নেয়, তাই স্পেশাল শুট গুলি চেষ্টা করুন আপনার অডিয়েন্সকে দেখাতে।

১৫. রোগা বা মোটা হওয়ার টিপস

আপনি কখনো অনলাইনে সার্চ করছেন কিভাবে মোটা বা রোগা হওয়া যায়, কিন্তু আপনি উত্তর পেয়েছেন তাও সন্তুষ্ট হবার মতো না।

পৃথিবীতে সমগ্র এই ধরণের ছোটো ও বড়ো সমস্যা আমারা অনলাইন খুঁজে থাকি তাই চেষ্টা করুন একটি ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে যারা এই ধরণের সমস্যায় ভুগছেন তাদের সাহায্য করতে।

শেষকথা

উপরের ১৫ টি ইউটিউব চ্যানেল আইডিয়া প্রত্যেকটি এই মুহূর্তে চলা সবথেকে বেশি ইউটিউব নিশ, আপনি এগুলির মধ্যে থেকে পছন্দ করতে পারেন কোনটি আপনার জন্য সুবিধাজনক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close